August 8, 2018

জানুয়ারির মধ্যে সবাই স্মার্ট কার্ড পাবে

বানী ডেস্কঃ

স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্র একটি অত্যন্ত প্রযুক্তি নির্ভর এবং আধুনিক প্রযুক্তি নির্ভর একটি দলিল বলে মনে করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদা।তিনি বলেছেন,‘এটি বাংলাদেশের জন্য একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিগত দলিল বলা যেতে পারে।আগামী ডিসেম্বর,জানুয়ারির মধ্যে সকল নাগরিকের কাছে এটি পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা করবো।’বুধবার (৮ আগস্ট) দুপুরে আগারগাঁওস্থ নির্বাচন ভবনের সম্মেলন কক্ষে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ভোলায় স্মার্টকার্ড বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধনকালে এসব কথা বলেন সিইসি। তিনি বলেন,‘আজকে ৮টি জেলায় ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধনের মাধ্যমে দেশের সব জেলায় স্মার্টকার্ড বিতরণ শুরু হয়েছে।আমরা আশা করি,যে উদ্দেশ্যে স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্র তৈরি করা হয়েছে এবং বিতরণ করা হলো তার যথাযথ মূল্যায়ন করা হবে।’ ‘আমি বারবার বলি বাংলাদেশের জাতীয় পরিচয়পত্রকে এটি অত্যন্ত তথ্যসমৃদ্ধ এবং সর্বশেষ প্রযুক্তি নির্ভর একটি দলিল বলা যেতে পারে’,যোগ করেন সিইসি।কেএম নূরুল হুদা বলেন,‘এটি সঙ্গে থাকলে মনে করবেন আপনি পৃথিবীর সঙ্গে আছেন। এটা যদি সঙ্গে থাকে তাহলে পৃথিবীর যেখানেই থাকবেন, সেখানেই আপনার পরিচিতি থাকবে। সুতরাং এটাকে যত্ন করে রাখবেন। এটার যাতে কোনো রকম অপব্যবহার না হয় এবং কেউ যাতে অপব্যবহার না করতে পারে সে ব্যাপারে সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করি।’ভোলায় সিইসি কেএম নূরুল হুদা,ময়মনসিংহে নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার, শ্বশুর বাড়ি চাঁদপুরে মো.রফিকুল ইসলাম,নিজ জেলা নওগাঁয় কবিতা খানম,যশোরে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাহাদাত হোসেন চৌধুরী,মুন্সিগঞ্জে ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ,মৌলভীবাজারে অতিরিক্ত সচিব মো. মোখলেছুর রহমান এবং মাদারীপুর জেলায় ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে স্মার্টকার্ড বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম। এই আট জেলার জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে ভিডিও কনফারেন্সিং সিস্টেম ব্যবহার করে ইসি সচিবালয়ের সঙ্গে সংযোগ স্থাপনের মাধ্যমে উক্ত ভিডিও কনফারেন্স করা হয়।এই আটটি জেলায় উদ্বোধনকালে ময়মনসিংহ জেলা বাদে বাকি সাতটি জেলার জেলা প্রশাসক,এসপিদের বক্তব্য শোনে ইসি।