August 11, 2017 9:26 pm A- A A+

নগর উন্নয়নের রুপকার শুধু নয়, বরিশালের আ`লীগ রাজনীতির অভিভাবক ছিলেন হিরণ

বাণী ডেস্ক
মাইদুল হাসান

এক সময়ের অবহেলিত বরিশালকে প্রাচ্যের ভেনিস হিসেবে পরিনত করার কারিগর ছিলেন প্রয়াত নেতা মরহুম শওকত হোসেন হিরণ। হিরণ ছিলেন গন মানুষের নেতা।স্বল্প রাজনৈতিক জীবনে রেখে গেছেন হাজারো ভক্ত ও কর্মীদের।তার গুনাবলি শেষ হবার নয় । তেমনি প্রয়াত এই নেতার হাতের জাদুতে একসময়কার জরাজীর্ণ বরিশাল নতুন দিগন্তে আখ্যায়িত হবার পাশাপাশি দেশজুড়ে মডেল নগরী হিসেবে ভূসিত হয়। শুধু উন্নয়নে নয় বরিশালের আওয়ামীলীগ রাজনীতিতে বিপ্লব ঘটিয়েছেন তিনি। দলের তৃনমূল নেতাকর্মীদের মূল্যায়নসহ তরূন প্রজন্মকে কিভাবে নেতা বানানো যায় তা শিখিয়ে গেছেন। তারই পাশাপাশি দলকে শক্তিতে রুপান্তরিত করতে হয় তাও নেতাকর্মীদের শিখিয়ে গেছেন তিনি। সবমিলিয়ে এক নতুন রূপ আর সেই রূপের কারিগর হিসেবে হিরন আখ্যায়িত হন রূপকার হিসেবে। আজ তিনি নেই। কিন্তু তার আদর্শ এখনো রাজনীতির মাঠে ধরে রেখেছেন অনেক নেতা। প্রতিহিংসার রাজনীতি না করে এসব নেতাকর্মীরা এখনো হিরণের শেখানো পথ ধরে নিজ স্বার্থ ভুলে গিয়ে দলকে শক্তিশালী করার জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। তবে এখনকার মুষ্টিমেয় শাসক দলের কয়েকজন নেতা হিরণের আদর্শের রাজনীতিতে বড় বাঁধা হয়ে দাড়িয়েছে। তারা মূলত দলকে ভালবাসেন না, নিজেদের আখের গোছাতে সর্বদা স্বার্থান্বেষি কাজ করে যাচ্ছেন। যা সম্প্রতি ঘটে যাওয়া ঘটনার উদাহরন সমুহু। যা হোক সব বাঁধা, বিঘ্ন উপেক্ষা করেই হিরণের সুনাম ধরে রাখতে অবিরাম দলের জন্য কাজ করছেন অধিকাংশ নেতা কর্মীরা। তার হাতেগড়া শত শত নেতা সৃষ্টির ভেতরে দুই জলন্ত নক্ষত্র রয়েছে। এর মধ্যে মহানগর ছাত্রলীগ সভাপতি মোঃ জসিম উদ্দিন ও বি এম কলেজ ( বাকসুর ) ভিপি মো: মঈন তুষার। এখনো হিরণের শেখানো রাজনীতির প্রতি সন্মান দিয়ে হাজারো বাধা বিপত্তির তোয়াক্কা না করে এই দুই নেতা পরিস্থিতি মোকাবেলা করছেন । নেতার প্রতি ভালবাসা ও নেতার আদর্শে শত শত কর্মীদের সাথে নিয়ে হিরণের স্বপ্ন বাস্তবায়নে দলের জন্য শ্রম দিচ্ছেন এই দুই সৈনিক। যার প্রমান বরিশালবাসি বহুবার দেখেছে। উল্লেখ্য ,হিরণের মৃত্যুর পরই একটি মহুল তার অনুসারীদের ওপর অত্যাচারসহ দল থেকে তাদের কোনঠাসা করে রাখতে সর্বদাই চেষ্টা করেছে। এখনো করে যাচ্ছে। ঐ মহলটির ভয়ে সে মূহুর্তে দু নেতা বাদে অধিকাংশ অনুসারীরাই উল্টোদিকে পথ চলা শুরু করে যা একপ্রকার বাধ্য হয়ে।এসকল ভোল পাল্টানো নেতা কর্মীরা স্রোতের সাথে তাল মিলিয়ে গাইতে থাকে হিরণ বাদে অন্য সুর। কয়েকদিন যেতে না যেতেই ভুলে যায় হিরণের অবদানের কথা।
অপরদিকে যতই চাপ আসছে না কেনো সব পিছনে ফেলে ছাত্রলীগ নেতা জসিম ও ভিপি মঈন তুষার হিরণের শোককে শক্তি হিসেবে কাজে লাগিয়ে বরিশাল আ`লীগকে শক্তিশালী করার লক্ষ নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। এমত অবস্থায় হিরন ষড়যন্ত্রকারীদের কাছ থেকে হামলা মামলার শিকার হয়েও হিরণের আদর্শ থেকে তারা এক বিন্দুও নড়েনি। যা তাদের কর্মে প্রমানিত হয়।হিরণের প্রতিটি স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দিতে এরা বদ্ধপরিকর, সাথে আছেন শতশত কর্মী। এ ব্যাপারে মহানগর ছাত্রলীগ সভাপতি জসিম উদ্দিন এবং বাকসুর ভিপি মঈন তুষার বলেন,হিরণ ছিলেন বরিশাল আওয়ামীলীগের অভিভাবক।তার আদর্শ ধরে রেখেই দলের জন্য কাজ করে যাবো, এতে যতই বাঁধা আসুক না কেনো পিছুপা হবো না।

সংবাদটি পড়া হয়েছে মোট 854 বার