June 1, 2018 9:33 pm A- A A+

পবিপ্রবিতে ছাত্র সহিংসতা:২০ জন আহত,হলের ৩২ কক্ষ ভাংচুর

বানী ডেস্ক:

পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (পবিপ্রবি) দু’গ্রুপের ছাত্র সহিংসতায় উভয় পক্ষের অন্তত ২০ জন শিক্ষার্থী আহত হয়েছে।সহিংসতাকালে শেরে-ই-বাংলা হলের অন্তত ৩২টি কক্ষের দরজা,জানালা ও আসবাবপত্র ভাংচুর করা হয়েছে।ভাংচুরকালে ওই সব কক্ষ থেকে অন্তত ১৫টি বিভিন্ন ব্রান্ডের ল্যাপটপ নিয়ে গেছে।এ সহিংস ঘটনার জন্য এক গ্রুপ অপর গ্রুপের ওপর দায় চাপানোর চেষ্টা করছে।শুক্রবার ভোররাতে পবিপ্রবির শেরে-ই-বাংলা হলে আবাসিক শিক্ষার্থীদের মধ্যে তুচ্ছ ঘটনায় হামলা সহিংসতা ও ভাংচুরের ঘটনাটি ঘটেছে।ক্যাম্পাস সূত্রে জানা যায়,বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের মধ্যে বরিশাল-পটুয়াখালী আঞ্চলিকতার পূর্ব দ্বন্দের জের ধরে সাগর নামের এক শিক্ষার্থীর সাথে বরিশাল অঞ্চলের এক শিক্ষার্থীর তর্ক-বিতর্ক হয়।এ তর্কের ইস্যুতে বরিশাল অঞ্চলের শিক্ষার্থীরা ভোর রাতে সেহরীর সময় পটুয়াখালী অঞ্চলের শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা করে।পটুয়াখালী বেল্টের শিক্ষার্থীরা প্রতিরোধে এগিয়ে এলে দু’পক্ষে তুমুল হট্টগোল,ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সহিংসতার ঘটনা ঘটে।সহিংসতায় ডি এম অনুষদের পঞ্চম সেমিস্টারের ছাত্র সাগর,কৃষি অনুষদের শাকিল,রিয়াজ,হৃদয়,নোমান,আতিক,প্রান্ত,বাপ্পি,রফিক,সৈকতসহ উভয় পক্ষের অন্তত ২০ জন আহত হয়েছে।আহতদের মধ্যে গুরুতর জখমি সাগর ও হৃদয় নামের দু’জনকে বরিশাল শেরে-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।অপরদিকে শেরে-ই-বাংলা হলের ডি-১- ১০১ থেকে ১০৩,ডি-২-২০১ থেকে ২০৬, তৃতীয় তলায় ৩০১-৩০৬ ও ৩১০ নং কক্ষসহ প্রায় ৩২টি কক্ষ ভাংচর করা হয়েছে।ভাংচুরকৃত কক্ষথেকে অন্তত ১৫টি ল্যাপটপ লুট হয়েছে।বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর মেহেদী হাসান জানান,পুলিশের সহায়তায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে।আহতদের চিকিৎসায় পাঠানো হয়েছে।বরিশাল অঞ্চলের শিক্ষার্থীরা হলে ও পটুয়াখালী অঞ্চলের শিক্ষার্থীরা বাইরে অবস্থান নেয়ায় পরিস্থিতি থমথমে রয়েছে।অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে ক্যাম্পাসে পুলিশ মোতায়েন রাখা হয়েছে।অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন,ভিসি স্যার ক্যাম্পাসে এসে দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সংবাদটি পড়া হয়েছে মোট 152 বার