June 5, 2018 7:38 pm A- A A+

প্রায় ১ দশক ধরে বন্ধ ইন্দুরকানীর কলারণ ঘাট

বানী ডেস্ক:

সিডরের আঘাতে প্রায় এক দশক ধরে বন্ধ পিরোজপুরের ইন্দুরকানীর ফেরিঘাট।এতে বিচ্ছিন্ন পিরোজপুরের সঙ্গে সুন্দরবন এবং বাগেরহাটের কিছু এলাকার সড়ক যোগাযোগ।দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন বলেশ্বর নদীর দু’পারের বাসীন্দারা।২০১৭ সালের নভেম্বরে ঘূর্ণিঝড় সিডরের তান্ডবে পিরোজপুরের কলারণ ফেরিঘাটের গেংওয়ে পল্টুন ভেসে যায় পাশের চরে। ১০ বছরেরও বেশি সময় ধরে পরে আছে সেখানেই।নষ্ট হচ্ছে কোটি টাকার সম্পদ।ঘাট না থাকায় বন্ধ ফেরি চলাচল। এতে বলেশ্বর নদী পারাপারে ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন দু’পারের যাত্রীরা।ভাটার সময় কাঁদা পানিতে বেড়ে যায় দুর্ভোগ।সবচেয়ে বেশি সমস্যায় পরতে হয় স্কুলগামী শিক্ষার্থী ও রোগীদের।ঝুঁকি নিয়ে ছোট নৌকায় পার হতে হয় নদী।দূর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় সঙ্কায় থাকে স্থানীয়রা।স্থানীয়রা বলেন,এখানকার স্থানীয়দের চলাচলে খুবই ভোগান্তিতে পরতে হয়,সবচেয়ে বেশি সমস্যা হয় শিক্ষার্থীদের।আমাদের এখানে ফেরি থাকলে অনেক সুবিধা হত,ফেরি না থাকার কারণে আমাদের অনেক ভোগান্তির মধ্যে পরতে হচ্ছে।ফেরির অভাবে স্থানীয়রা ১০ বছর ভোগান্তি পোহালেও ভেসে যাওয়া পল্টুন উদ্ধার বা সংস্কারে কোনো উদ্যোগ নেয়নি কর্তৃপক্ষ।পিরোজপুরের সওজ উপ-বিভাগের প্রকৌশলী শেখ আখতার আলী বলেন,এখানে প্রচন্ড ঝড়ে ফেরিঘাটটি নষ্ট হয়ে যায়,এরপর থেকে ফেরিঘাট আর চালু হয়নি।এই ফেরিঘাট পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে।এই ফেরিঘাট চালু করার জন্য আমরা ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের খুব দ্রুতই জানাবো।কলারণ সন্নাসী পয়েন্টে এবারো ফেরি চালু হলে পিরোজপুরের সাথে সরাসরি যান চলাচল শুরু হবে বাগেরহাট,মোড়লগঞ্জ ও শরণখোলার।এতে নিয়মিত যাত্রীদের পাশাপাশি সুবিধা পাবেন সুন্দরবনগামী পর্যটকরাও।

সংবাদটি পড়া হয়েছে মোট 60 বার