August 10, 2018 6:27 pm A- A A+

আগুন সন্ত্রাস হত্যাকারীদের মুখে গনতন্ত্রের কথা মানায় না:বরিশালে নৌমন্ত্রী

বানী ডেস্কঃ

নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাহজাহান খান বলেছেন,আগুন সন্ত্রাস হত্যাকারীদের মুখে গনতন্ত্রের কথা মানায় না।দেশে আর কোন জঙ্গিবাদের গনতন্ত্র চলবেনা।খালেদা জিয়ার চোখে ছানি পরেছে বলেই সে আওয়ামী লীগের কোন উন্নয়ন দেখতে পায়না।আমরা বিএনপি’র দূর্ণীতি লুটপাট এর অর্জন এই দেশ থেকে চিরতরে ধ্বংস করে দেবে।গনতন্ত্রের কথা বলে গনতন্ত্র ধ্বংস করবেন তাদেরকে বাংলার মানুষ আর ক্ষমতায় আনবে না।ওরা পুনরায় ক্ষমতায় আসলে লুটপাট করে দেশকে ধ্বংস করে ফেলবে।আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শেখ হাসিনার নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে উন্নয়নের ধারা অব্যহত রাখার জন্য জনগনের প্রতি আহবান জানান নৌ মন্ত্রী।শুক্রবার বিকেল ৪টায় বরিশাল লঞ্চঘাট পার্কিং স্থানে পাইলট বিশ্রামাগার উদ্বোধন ও সুধিসমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।বিআইডব্লিউটিএ এর চেয়ারম্যান কমোডর এম মোজাম্মেল হকের সভাপতিত্বে সুধি সমাবেশে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বরিশাল সদর ৫ আসনের সংসদ সদস্য জেবুন্নেছা আফরোজ।এসময় আরো বক্তব্য রাখেন বরিশালের জেলা প্রশাসক মোঃ হাবিবুর রহমান,নৌ মন্ত্রনালয়ের যুগ্ম সচীব শহিদুল ইসলাম,নৌ পুলিশ সুপার (বরিশাল অঞ্চল) কবির উদ্দিন,বরিশার সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সাইদুর রহমান রিন্টু,বিআইডব্লিউটিএ কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি আবুল হোসেন,মহানগর শ্রমিকলীগ সাধারন সম্পাদক বাবু পরিমল চন্দ্র প্রমুখ।নৌ মন্ত্রী শাহজাহান খান আরো বলেন,শেখ হাসিনা’র সরকার ১৭৮টি নদী খনন কাজ করার মাদ্যমে ২৪ হাজার কিঃমিঃ নদী পথ তৈরি করার কাজ হাতে নিয়েছে।যা আগামী ৫ থেকে ৭ বছরের মধ্যে দেশের নদী পথে এক বিপ্লব ঘটানো হবে।ইতোমধ্যে আমরা ৩৬টি নদীর ড্রেজিং কাজ সম্পন্ন করেছি।শেখ হাসিনা সরকার ২০০৯ সাল থেকে এ পর্যন্ত ক্ষমতায় থেকে নিন্ম আয়ের বাংলদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিনত করেছে।তিনি বলেন,খালেদা জিয়ার শাসন আমলে ৩০ লক্ষ খাদ্য ঘাটতি রেখে গিয়েছিল।আমাদের সরকার কৃষিতে বিপ্লব ঘটিয়ে দেশের খাদ্য সমস্যা দূর করে আজ আমরা বিদেশে চাল রপ্তানী করছি।নৌ মন্ত্রী আরো বলেন,পদ্মা সেতু নিয়ে দূর্নীতির অভিযোগ তুলে অনেক ষড়যন্ত্র করেছিলো তারা।এমনকি বিশ্ব ব্যাংকের টাকাও বন্ধ করে দিয়েছিলো।শেখ হাসিনার সরকার আজ নিজস্ব অর্থায়নে সেই পদ্মা সেতু র্নিমান করছে।বর্তমান প্রধানমন্ত্রী’র আর একটি স্বপ্ন দক্ষিনাঞ্চলের পায়রা বন্দর ও রেল পথের কাজ সম্পূর্ন করার কাজও চলছে।তিনি বলেন,২০০৯ সাল থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত আমরা ১৪টি নদী খননের ড্রেজার নির্মান করেছি।সেই সাথে আরো ৩৮টি ড্রেজার নির্মানে কাজ চলছে।আমাদের সরকার ইতিমধ্যে মংলাসহ দেড় হাজার নৌপথ উদ্ধারের মাধ্যমে সচল করেছে।তৎকালীন জিয়াউর রহমান এর শাসন আমলে মংলা সংলগ্ন ৮৩টি খাল ইজারা দিয়ে মংলা বন্দরকে ধ্বংস করে দিয়েছিল।এ ছাড়াও আমরা ১৭টি ফেরি ক্রয় করেছি।আরো ১০টি ফেরি নির্মান করছি।দেশে শেখ হাসিনা সরকার ছাড়া আর কোন সরকার দেশের নদী পথ রক্ষার জণ্য কাজ করে নাই।এর পূর্বে প্রধান অতিথি নৌ মন্ত্রী শাহজাহান খান তিন তলা বিশিষ্ট পাইলট বিশ্রামাগার,নব নির্মিত ভবনের ফলক উন্মচন ও মোনাজাতের মাধ্যমে উদ্বোধন করেন।

সংবাদটি পড়া হয়েছে মোট 26 বার