August 31, 2018 6:45 pm A- A A+

জঙ্গি মিরাজ আটক,বিপুল পরিমাণ অস্ত্র উদ্ধার

বানী ডেস্কঃ

বরিশালে অভিযান চালিয়ে একজন জঙ্গি সদস্য আটক করেছে র্যাব-৮।আটকৃতর নাম আব্দুল্লাহ আল মিরাজ ওরফে খালেদ সাইফুল্লাহ ওরফে সাইফুল (২৫)।শুক্রবার (৩১ আগস্ট) দুপুরে প্রেরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য নিশ্চিত করেছে র্যাব।জানা গেছে,৩০ আগস্ট বরিশালের কোতয়ালী থানাধীন দরগাবাড়ি রোড এলাকা থেকে নিষিদ্ধ ঘোষিত জেএমবি সদস্যকে আটক করা হয়।তার পিতার নাম ইব্রাহিম খলিল।তাদের বাড়ি বরগুনা জেলার মনশাতলী গ্রামে।র্যাব জানিয়েছে,প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত মিরাজ নিষিদ্ধ ঘোষিত জেএমবির সক্রিয় সদস্য বলে স্বীকার করেছে।মিরাজের কাছ হতে উগ্রপন্থী বই,অস্ত্র,গুলি,সার্কিট তৈরির বিভিন্ন সরঞ্জাম ও সিডি উদ্ধার করা হয়েছে।জিজ্ঞাসাবাদে মিরাজ আরো জানায়,সে বরগুনা জেলার রফাচন্ডী মাদ্রাসা থেকে ২০০৬ সালে দাখিল পাস করে।এরপর ইলেকট্রনিক্সের কাজ শেখার জন্য বরগুনা সদররের জনৈক মনিরের (মৃত) ‘বরগুনা টেলিকম’ নামে দোকানে কাজ শুরু করে।এসময় মিরাজ জসীম উদ্দিন রহমানীর বক্তব্য ওয়াজ শুনে জিহাদে উদ্ধুদ্ধ হয়।মনিরের কাছে থাকা অবস্থায় তার সাথে আতিকুর রহমান ওরফে বাবু ওরফে শাওন (২৪),নাজমুল ওরফে উকিল ওরফে রেশান,তরিকুল ওরফে সাকিব ওরফে নাজমুল সাকিব,আলামিন ওরফে হাসান ওরফে আলমগীর,আল আমিন ওরফে রাজীব ওরফে আজিজুলসহ আরো কয়েকজন সমমনোভাবাপন্ন লোকের সাথে পরিচিত হয় এবং ধীরে ধীরে এদের সাথে ঘনিষ্ট হয়।এক পর্যায়ে ২০১২ সালে মনিরের সাথে জসিম উদ্দিন রহমানীর সাথে গোপন বৈঠক করাকালীন পুলিশের হাতে আটক হয় মিরাজ।জামিনে আসার পর বেশ কিছুদিন বাড়িতে অবস্থান করে।২০১৪ সালে থেকে তার সাথে আবার নাজমুল,তারিকুল,সবুজসহ অন্যান্যদের সাথে যোগাযোগ হয়।ওই সময় থেকে মিরাজ আরো অনেকের সাথে বিভিন্ন স্থানে গোপনে বৈঠক করে এবং জেএমবি কার্যক্রম তথা স্বসস্ত্র উগ্রবাদে উদ্ভুদ্ধ হয়।নাজমুল ওরফে উকিলের নির্দেশে মিরাজ প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে এবং নিজ বাড়ী ও দেশের বিভিন্ন স্থানে মাঝে মাঝে অবস্থান করতো।আটককৃত মিরাজ সার্কিট বানাতে পারদর্শী বলে জানা যায়।মিরাজ মোবাইলফোনে একাধিক সিমের মাধ্যমে তার সহযোগীদের সাথে যোগাযোগ করতো।তবে একান্ত প্রয়োজন না হলে মোবাইলে মিরাজ সিম ব্যবহার করত না।সহযোগীদের সাথে দেখা করার জন্য মিরাজ মাঝে মাঝে নির্দেশিত স্থানে গিয়ে দেখা করতো বলে জানায়।আটকের সময় আব্দুল্লাহ আল মিরাজ ওরফে খালেদ সাইফুল্লাহ ওরফে সাইফুলের (২৫) কাছ থেকে একটি পিস্তল,২টি খালি ম্যাগাজিন,৪ রাউন্ড গুলি,১৫টি ইলেকট্রিক সার্কিট,১টি তাতাল,২টি হেক্সো ব্লেড.১৬টি জিহাদী বই,১টি সিডি,১টি টেবিল ঘড়ি,১টি মোবাইল,২টি জিহাদী পাসপোর্ট এবং বিভিন্ন প্রকার ইলেট্রিক যন্ত্রপাতি উদ্ধার করা হয়।র্যাব-৮ এর উপ-পরিচালক আতিকা রহমান জানিয়েছেন,আটককৃত জঙ্গীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া চলছে।

সংবাদটি পড়া হয়েছে মোট 57 বার