September 9, 2018 7:15 pm A- A A+

ইউপি চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে জমি দখল

বানী ডেস্কঃ

বরগুনার আমতলী উপজেলার হলদিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ শহিদুল ইসলাম মৃধার নেতৃত্বে দক্ষিণ রাওঘা গ্রামের কৃষক আনোয়ার মৃধার জমি জোর পূর্বক চাষাবাদ শেষে নিজাম উদ্দিন মোল্লার বাড়ীতে ভুঁড়িভোজ করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।রবিবার আমতলী রিপোর্টার্স ইউনিটিতে সংবাদ সম্মেলন করে লিখিত অভিযোগ করেছেন কৃষক আনোয়ার মৃধা।লিখিত বক্তব্যে কৃষক আনোয়ার মৃধা অভিযোগ করে বলেন,দক্ষিণ রাওঘা মৌজার এসএ ১৬২/৩২৮ খতিয়ানের পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া ৬৬ শতাংশ জমি গত ৫০ বছর ধরে ভোগ দখল করে আসছি।আমি গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম মৃধার পক্ষ না করায় আমাকে হয়রানী করার জন্য একই গ্রামের নিজাম উদ্দিন মোল্লাকে দিয়ে ওই জমি জোরপূর্বক দখলের চেষ্টা চালায়।গত শুক্রবার চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম মৃধা ও তার লোকজন গিয়ে আমার রোপন করা জমির বীজ তুলে তারা পুনরায় চাষাবাদ করে বীজ রোপন করে।আমি প্রতিবাদ করলে আমাকে এবং আমার লোকজন মারধর করেছে এবং ধারালো অস্ত্র দিয়ে ধাওয়া করে।কোনমতে আমরা প্রাণ ভয়ে পালিয়ে আসি।পরে চেয়ারম্যান ও তার লোকজন আমার বাড়ীতে এসে আমাকে শাসিয়ে যায়।এ বিষয় নিয়ে মামলা ও বাড়াবাড়ি করলে আমাকে মেরে ফেলবে বলে হুমকি দেয়।তিনি আরো বলেন,জমি চাষাবাদ শেষে চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম মৃধা ও তার লোকজন নিজাম মোল্লার বাড়ীতে দুপুরে গরু জবেহ করে ভুঁড়িভোজ করেছেন।লিখিত বক্তব্যে তিনি আরো বলেন,আমি এ বিষয়টি নিয়ে আমতলী থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ মামলা নেয়নি।চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম মৃধা থানায় মামলা করতে যাওয়ার খবর পেয়ে আমার বাড়ীতে পুনরায় তার লোকজন পাঠিয়ে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে আসে।আমরা চেয়ারম্যান ও তার লোকজনের ভয়ে বাড়ী ছেড়ে পালিয়ে যাই।ওই দিন থেকে তাদের ভয়ে বাড়ীতে যেতে পারছি না।তাদের ভয়ে আমি এবং আমার পরিবারের লোকজন পালিয়ে বেড়াচ্ছি।সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন তার ছেলে কাওসার মৃধা ও ভাইয়ের শ্যালক আনোয়ার গাজী।এ বিষয়ে জানতে চাইলে হলদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ শহীদুল ইসলাম মৃধা মুঠোফোনে তার লোকজন দিয়ে জমি চাষাবাদ করে ভুঁড়িভোজের কথা স্বীকার করে বলেন,বিবাদমান ওই জমি কোন পক্ষ চাষাবাদ করেনি।আমি উপস্থিত থেকে নিজাম উদ্দিন মোল্লাকে জমি চাষাবাদ করে দিয়েছি।আমতলী থানার ওসি মোঃ আলাউদ্দিন মিলন বলেন,এ বিষয়ে আমার কাছে কেউ অভিযোগ দেয়নি।অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সংবাদটি পড়া হয়েছে মোট 42 বার