September 21, 2018 7:38 pm A- A A+

বরিশাল ভারতীয় ভিসা আবেদন কেন্দ্র দালালদের আতুরঘরে পরিনত

বানী ডেস্কঃ

দালালদের আতুরঘরে পরিনত হয়েছে বরিশাল ভারতীয় ভিসা আবেদন কেন্দ্র।ভিসা জমা দেয়ার লাইন বিক্রি,ভারতীয় ভিসা আবেদনের নির্ধারিত ফি’র থেকে বেশি টাকা নেয়া এমনকি ভিসা আবেদন জমা দিতে আসা সাধারন মানুষদের লাঞ্চনার ঘটনাও এখানে নতুন নয়।ভারতীয় ভিসা সহজীকরনের লক্ষ্যে ২০১৫ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর নগরীর ঝাউতলায় এলাকায় উদ্বোধন করা হয় বরিশাল ভিসা আবেদন কেন্দ্রের।আর ভিসা আবেদন সেন্টারকে কেন্দ্র করে ঝাউতলা এলাকার কিছু বেকার যুবক ভারতীয় ভিসা প্রসেসিং এর অনলাইন এর কাজ শুরু করে।নাম না প্রকাশ করার শর্তে ঝাউতলা দ্বিতীয় গল্লির এক বাসিন্দা বলেন,ভারতীয় ভিসা অফিস হবার পূর্বে এই এলাকার একাধিক বেকার যুবককে দেখা যেত কোন কাজ না করতে।কিন্তু ভিসা অফিস এখানে হওয়ার পর থেকেই তাদের দেখছি শুধু কাগজ পত্র নিয়ে ঘোরে। তিনি আরো বলেন,বেশ কিছুদিন পূর্বে আমার এক নিকট আত্মীয় ভারতীয় ভিসা জমা দেয়ার জন্য ভিসা অফিসে গেলে তখন তার কাছে স্থাণীয় এক যুবক আগে সিরিয়াল করিয়ে দেয়ার জন্য টাকা দাবি করে।তিনি তখন টাকা দিতে অসংঙ্গতি প্রকাশ করলে তার সাথে তখন খারাপ ব্যবহার করে তারা।অপরদিকে ভারতীয় চিকিৎসা ভিসা জমা দিতে আসা গোপালগঞ্জের সন্তোষ ঘরামী নামে এক ব্যক্তি জানান,সকাল ৫টার সময় এসে লাইনে দাড়িয়ে যখন এক নম্বর সিরিয়ালে থাকি তখন আমাকে ধাক্কা দিয়ে সড়িয়ে অন্য এক ব্যক্তিকে ওই এক নম্বর সিরিয়াল দেয় লিটন নামে এক যুবক।এর প্রতিবাদে করতে গেলে ওইসয়ম ওই যুবক (লিটন) আমাকে বলে আমি এখানের স্থাণীয় ছেলে আমি একটু সুযোগ সুবিধাতো নিবোই।সরেজমিনে পরিদর্শনকালে দেখা যায়,ভারতীয় ভিসা অফিসের নিচে স্টল ভাড়া নিয়ে ভিসা প্রসেসিং অফিসের নামে সকল ধরনের ভুয়া কাগজপত্র,ব্যাংঙ্ক স্টেটমেন্ট,মোটা টাকার বিনিময়ে তৈরি করে থাকে এসকল দালালরা।খোঁজ নিয়ে জানা যায়,স্থাণীয় যুবক করিম,দিপক,গৌতম,অশোক,জুয়েল,মামুন,লিটন,পার্থ ও মিলন এক জোট হয়ে প্রশাসনকে মোটা টাকার বিনিময়ে ম্যানেজ করে এমন কাজ করে আসছে।অপরদিকে ভিসা আবেদন জমা দিতে আসা একাধিক ব্যক্তি অনুরোধের সুরে দাবী করেন ভারতীয় ভিসা অফিস ঝাউতলা থেকে সড়িয়ে অন্যত্র নেয়ার জন্য সংশ্লিস্ট কর্তৃপক্ষ যেন দৃষ্টিপাত করেন।এ বিষয়ে বরিশাল ভিসা আবেদন কেন্দ্রের দায়িত্বরতদের মুঠোফোনে একাধিকবার চেস্টা করা হলেও তারা ফোন রিসিভ করেনি।এ বিষয়ে কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ নুরুল ইসলাম পিপিএম এর মুঠোফোনে বিষয়টি নিয়ে আলাপকালে তিনি বলেন,ভারতীয় ভিসা আবেদন কেন্দ্রের দালালদের বিষয়ে আমাদের কাছে সুনির্দিষ্ট কোন অভিযোগ নেই।তবে দৈনিক বরিশালের আলো পত্রিকার মাধ্যমে বিষয়টি অবগত হওয়ায় আমরা এর বিরুদ্ধে তদন্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

সংবাদটি পড়া হয়েছে মোট 78 বার