বুধবার, ২৩শে জানুয়ারি, ২০১৯ ইং, রাত ১২:২৮

আহত ১০ শিক্ষার্থী, জবির বাস ভাঙচুর

আহত ১০ শিক্ষার্থী, জবির বাস ভাঙচুর

dynamic-sidebar

নারায়ণগঞ্জের রুপগঞ্জ এলাকায় উল্টোপথে শ্রমিকবাহী বাস চলতে নিষেধ করায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) ‘নোঙর’ বাস ভাঙচুর ও শিক্ষার্থীদের উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে বাসে থাকা শিক্ষার্থীদের মধ্যে প্রায় ১০ জন শিক্ষার্থী আহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার (১০ জানুয়ারি) বিকেলের দিকে জবির নারায়ণগঞ্জগামী ‘নোঙর’ বাস রূপগঞ্জ পৌঁছালে এই ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, জবির শিক্ষার্থী পরিবাহী নারায়ণগঞ্জগামী বাসটি রূপগঞ্জ এলাকায় হালকা জ্যামে আটকা পড়ে। এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসটি জ্যামে আটকা থাকলেও ‘জাপান বাংলাদেশ টেক্সটাইল’ নামক একটি গার্মেন্টসের কর্মীবাহী বাস উল্টো পথে যাত্রা শুরু করে। এতে বেশ কিছু জবি শিক্ষার্থী বাস থেকে নেমে প্রতিবাদ জানান ও বিবাদে জড়িয়ে পড়েন। এসময় জবির বাসে কর্মরত রিয়াজ নামের এক স্টাফকে গার্মেন্টস ফ্যাক্টরির ভেতরে নিয়ে যায় শ্রমিকরা।

বিষয়টি নিয়ে দুপক্ষের কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতির এক পর্যায়ে আরো সহকর্মী শ্রমিকদের নিয়ে ছাত্রদের উপর হামলা চালায় তারা। এসময় বাসের বাইরে থাকা ছাত্রদের সাথে এক প্রকার সংঘর্ষ বেধে যায়। এতে বাসে থাকা মেয়ে শিক্ষার্থীদের উপরেও হামলা চালায় শ্রমিকরা। এছাড়া বাসটিতেও ভাঙচুর চালায় শ্রমিকরা।

জবি শিক্ষার্থী প্রান্ত, রাহাদ, উজ্জ্বল, শান্ত, সৌরভ, উদিতা, শিমলা ও এক গার্মেন্টস শ্রমিকসহ প্রায় ১১ জন আহত হন। আহতদের স্থানীয় আবদুল মালেক হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। ঘটনার কিছু সময় পর পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। তবে পুলিশ আসার পরেও জবির বাসটি আটকে রাখেন বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা। পরে রাত ৯ টার দিকে বাসটি নারায়নগঞ্জে নিয়ে আসা হয়।

ঘটনার সময় বাসে থাকা শিক্ষার্থী সাদিয়া রাহা বলেন, আমাদের বাসের ছেলেরা একটি ন্যায়সম্মত কথা বলায় তারা আমাদের উপর হামলা করেছে। তাদের আক্রমণ এতটাই হিংস্র ছিল যে এ থেকে মেয়েরাও রেহাই পায়নি। মেয়েদের উপরেও আক্রমণ করে শ্রমিকরা।

এ বিষয়ে প্রক্টর নূর মোহাম্মদ বলেন, আমরা রূপগঞ্জ থানায় প্রাথমিকভাবে জানিয়েছি এবং তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে কারা এর সাথে সংশ্লিষ্ট তা বের করার চেষ্টা করছে। সকালে প্রক্টর অফিস ও পরিবহন পুলের প্রতিনিধি ঘটনাস্থলে যাবেন এবং থানায় অভিযোগ দায়ের করবেন। শিক্ষার্থীদের সাথে কথা হয়েছে এবং তারা প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে বাড়ি ফিরেছেন বলেও জানান প্রক্টর।

সারাবাংলা

Count currently

  • 9714Visitors currently online:

Counter Total

Facebook Pagelike Widget

Desing & Developed BY EngineerBD.Net

Shares
Show Buttons
Hide Buttons