বুধবার, ২৪শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং, বিকাল ৫:৪৮

ডাকসু নির্বাচনে প্রার্থীর বয়স সর্বোচ্চ ৩০ বছর

ডাকসু নির্বাচনে প্রার্থীর বয়স সর্বোচ্চ ৩০ বছর

dynamic-sidebar

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনে প্রার্থীর বয়স ৩০ বছর নির্ধারণ করা হয়েছে। যারা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনার্স সম্পন্ন করে মাস্টার্স বা এমফিল শিক্ষার্থী হিসেবে অধ্যয়নরত আছেন তারাও নির্বাচনে অংশ নিতে এবং ভোট দিতে পারবেন। এছাড়া আবাসিক হলগুলোতে ভোটগ্রহণের বুথগুলো স্থাপন করা হবে বলেও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৯ জানুয়ারি) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম সিন্ডিকেট সভায় এই সিদ্ধান্ত দেওয়া হয়েছে। সভায় সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান।

পরে সংবাদ সম্মলন করে বিস্তারিত জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এনামউজ্জামান।

জানা যায়, যারা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক পর্যায়ে প্রথম বর্ষে ভর্তি হয়ে অনার্স, মাস্টার্স ও এমফিল পর্যায়ে অধ্যায়নরত আছেন এবং যারা বিভিন্ন আবাসিক হলে আবাসিক-অনাবাসিক শিক্ষার্থী হিসেবে সংযুক্ত রয়েছেন এবং নির্বাচনি তফসিল ঘোষণার তারিখে যাদের বয়স কোনোক্রমে ৩০ এর বেশি হবে না, শুধু তারা ডাকসু ও হল সংসদ নির্বাচনে ভোটার হতে পারবেন। সব ভোটারই প্রার্থী হওয়ার যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন।

যারা সান্ধ্যকালীন বিভিন্ন কোর্স, প্রোগ্রাম, প্রফেশনাল, এক্সিকিউটিভ, স্পেশাল মাস্টার্স, ডিপ্লোমা, এমএ, বিবিএ, ল্যাঙ্গুয়েজ কোর্স, পিএইচডি সার্টিফিকেট কোর্স অথবা এই ধরনের অন্যান্য কোর্সে অধ্যয়নরত আছেন তারা ভোটার হতে পারবেন না। ৩০ বছরের ঊর্ধ্বের শিক্ষার্থীরা যে কোর্সেই অধ্যয়নরত থাকুক, তারাও নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন না।

সরকারি অথবা দেশে বা বিদেশে যেকোনও প্রতিষ্ঠানে কর্মরত কোনও শিক্ষার্থী ভোটার বা প্রার্থী হতে পারবেন না।

এছাড়াও, সিন্ডিকেট সভায় ক্রিয়াশীল ছাত্র সংগঠনের প্রস্তাবনার ভিত্তিতে কয়েকটি সম্পাদকীয় পোস্ট বাড়ানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, আগামী ১১ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ও হল ছাত্র সংসদ নির্বাচন।

0Shares

Count currently

  • 84640Visitors currently online:

Counter Total

Facebook Pagelike Widget

Desing & Developed BY EngineerBD.Net