বুধবার, ২৬শে জুন, ২০১৯ ইং, সকাল ৮:১৯

তার শুভবুদ্ধির উদয় হোক: পপি

তার শুভবুদ্ধির উদয় হোক: পপি

dynamic-sidebar

এটিএন বাংলা ও এটিএন নিউজ চ্যানেলের চেয়ারম্যান মাহফুজুর রহমানকে ‘মেকাআপম্যান’ বলেছেন বলে যে অভিযোগ উঠেছে, তা ভিত্তিহীন দাবী করেছেন অনিনেত্রী পপি। পাশাপাশি সংবাদ সম্মেলনে পপিকে ‘হারামজাদী’ ও ‘শয়তান’  সম্মোধন করে ক্যামেরার সামনে পা ধরে ক্ষমা চাইতে বলার প্রতিবাদ করেছেন ঢাকাই ছবির এ নায়িকা।

সমকাল অনলাইনকে পপি বলেন, ‘ভুল করলেই তো ক্ষমা চাওয়ার প্রশ্ন আসে। আমি ড. মাহফুজুর রহমানের সঙ্গে কোন ভুল করিনি। তিনি আমার পিতৃতুল্য। ভুল করলে তো ক্ষমা চাওয়াই যায়; কিন্তু আমি তো ভুল করিনি। তারই প্রডাকশন ‘সাহসী যোদ্ধা’ নামের একটি ছবির শুটিং সেটে এসে তিনি আমার মেকআপ ঠিক করে দিচ্ছিলেন; তখন তারই কোন লোক ছবি তুলে ফেসবুকে দিয়ে দিযেছেন। সেটার নিউজ হয়েছে। এখানে মার ভুলটা কী। আমি তো তাকে কিছু বলিনি। তবুও তিনি কেন আমাকে নিয়ে এমন মন্তব্য করলেন বুঝে আসছে না।’

রাজধানীর কারওয়ান বাজারে এটিএন বাংলার কার্যালয়ে গত সোমবার সন্ধ্যায় ‘সময় ও অসময়ের গল্প’ সিরিজের নাটকের সংবাদ সম্মেলনে পপিকে উদ্দেশ্য করে এটিএন বাংলা ও নিউজের চেয়ারম্যান বলেন, ‘পপি একটা ছবি ছড়িয়ে দিয়েছিল, তাকে আমি মেকআপ করে দিচ্ছি। ওই শয়তান মেয়েটা এটি করল। ওর এ জিনিসটা করা খুবই জঘন্যতম কাজ হয়েছে। সে লিখেছে- এখন থেকে পপির নতুন মেকআপম্যান মাহফুজুর রহমান। কত জঘন্য কাজ এটি বলেন…। তারপর থেকে পপিকে এই এরিয়ার (এলাকায়) মধ্যে আমি ঢুকতে দেইনা। আমি ওই হারামজাদী শয়তানকে ক্ষমা করিনি। আমি তখনই মাফ করব, যখন সে পা ধরে মাফ চাইবে এবং সেটা আমি টিভিতে দেখাব।’ 

পরে ড. মাহফুজুর রহমানের ওই মন্তব্যের ভিডিওটি ভাইরাল হয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।  

এতো সবের পেছনের  সেই ছবি

বিষয়টি নিয়ে পপির সঙ্গে সমকাল অনলাইনের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হলে পপি উল্লিখিত কথাগুলো বলেন। এ সময় মাহফুজুর রহমানের সঙ্গে অনেক কাজ করার কথা জানিয়ে তার তার প্রশংসা করেন অভিনেত্রী পপি।

পপি বলেন, ‘তিনি একটি টেলিভিশন চ্যানেলের মালিক। আমি তার সঙ্গে অনেক কাজ করেছি। সেদিক থেকে তিনি আমার কাছে সম্মানিত। আমি কখনও কারও সম্পর্কে খারাপ মন্তব্য করি না। কেউ আমার মনে কষ্ট দিলেও আমি তাকে আক্রমণ করে কিছু বলি না। অথচ যে দেশের প্রধানমন্ত্রী একজন নারী সেদেশে একজন নারীকে নিয়ে তিনি এমন মন্তব্য কীভাবে করলেন! আমি মাহফুজুর রহমানকে ওই ধরনের কোনো কথা বলিনি। উনি পারলে প্রমাণ দিক।’

‘মাহফুজুর রহমানের শুভবুদ্ধির উদয় হোক। তার নামের আগে তো ‘ডক্টর’ বলা হয়- তার উচিত এই ডক্টর শব্দটির সম্মান রেখে কথা বলা’- যোগ করেন পপি। ‘কুলি’ খ্যাত এ নায়িকা আরও বলেন, ‘তার উচিত একজন অভিনেত্রীকে বিশেষত নারীদের সম্মান দিয়ে কথা বলা। এভাবে কোনো নারীকে অপমানসূচক কথা তিনি বলতে পারেন না।’

মাহফুজুর রহমানের ভাইরাল হওয়া ভিডিওর জের ধরে পপি জানান, তিনি মাহফুজুর রহমানের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন বলে যে দাবি করা হয়েছে, তা সঠিক নয়। পাশাপাশি পপি বলেন, ‘ড. মাহফুজুর রহমান কানকথা বেশি শোনেন মনে হচ্ছে। এটা না করে নিজের বিবেচনাবোধ দিয়ে চলা উচিত।’

যা ঘটেছিলো আগে 

কিছু দিন আগে ‘সাহসী যোদ্ধা’ ছবির শুটিংয়ের জন্য এফডিসিতে মেকআপ করছিলেন চিত্রনায়িকা পপি। হঠাৎ সেই সেটে হাজির হন ড. মাহফুজুর রহমান। মেকআপম্যান ঠিকমতো মেকআপ করতে না পারায় মাহফুজুর রহমান নিজেই পপির মেকআপ ঠিক করে দেন। এ ছবি ও ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। এ নিয়ে হাস্যরসের সৃষ্টি হয়। গণমাধ্যমে প্রতিবেদনও প্রকাশ হয়। ড. মাহফুজুর রহমান মনে করছেন, সেই ছবি পপি নিজেই ফেসবুকে আপলোড করেছেন এবং ক্যাপশনে লিখেছেন ‘ড. মাহফুজুর রহমান আমার মেকাআপম্যান।’   

 
23Shares

Count currently

  • 140237Visitors currently online:

Counter Total

Facebook Pagelike Widget

Desing & Developed BY EngineerBD.Net