মঙ্গলবার, ১৬ই জুলাই, ২০১৯ ইং, বিকাল ৪:০১

বাউফলে বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অনশন

বাউফলে বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অনশন

dynamic-sidebar

বাউফল প্রতিনিধি:
পটুয়াখালীর বাউফলে দীর্ঘ বছর বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে একাধিক বার ধর্ষন করে বিয়ে না করায় প্রেমিকের বাড়িতে অবস্থান নিয়ে অনশণ করছেন ২৫ বছর বয়সী এক যুবতী। এমন ঘটনা ঘটে উপজেলার মদনপুরা ইউনিয়নে।
জানা যায়, মদনপুরা ইউনিয়নের (৫নং ওয়ার্ডে) মৃধার বাজার এলাকার আবদুস সোবাহান হাওলাদারে ছেলে মো: সোহাগ হাওলাদারের সাথে একই ইউনিয়নের আবদুল কাদের গাজীর মেয়ে মোসা: সানিয়া আক্তারের সাথে দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিলে। সম্পর্কে তারা মামা-ফুফাতো ভাই-বোন। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে একাধিক বার শারিরিক সর্ম্পক স্থাপনার করার পর বিয়ে না করায় গত বুধবার থেকে সোহাগের বাড়িতে অনশন করছেন সানিয়া।
এই ঘটনার পর সোহাগ ও তার বাবা সোবাহান গা ঢাকা দিয়েছেন। না খেয়ে দিন কাটাচ্ছেন সানিয়া। সোহাগের আত্মীয় স্বজন বিভিন্ন ভাবে মানসিক টর্চার করছেন বলে অভিযোগ করেন সে।

এব্যাপারে সানিয়া সাংবাদিকের জানায়, পারিবারিক আত্মীয় হওয়ায় ছোট বেলা থেকে তাঁর সাথে আমার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। সে বিয়ে প্রলোভন দেখিয়ে আমার সাথে একাধিক বার শারিরিক সম্পর্কে লিপ্ত হয়।বিয়ের কথা বলা হলে নানান অজুহাত দেখিয়ে আজ না কাল করে কালক্ষেপণ করে আসছে।
এসময় এক প্রশ্নে জবাবে সানিয়া বলেন, আমাদের সম্পর্কের কথা মামা-মামিসহ পরিবারের সবাই জানে। সর্বশেষ তাদের কাছে আমাদের বিয়ে দিয়ে দেওয়ার কথা বলা হলে তারা আমাকে মেনে নিতে অস্বীকার করেন।
এব্যাপারে সোহাগের বাড়িতে তাঁকে পাওয়া যায়নি। তাঁর সাথে যোগাযোগ করা হলে তার মুঠোফোন (০১৭২০৫৮৯১৮০ বন্ধ পাওয়া যায়।
এব্যাপারে সোহাগের মা রওশানার বেগম ও বোন বিউটি আক্তার তাদের সম্পর্কে করা স্বীকার করেন। তারা বলেন সোহাগ সানিয়াকে নিয়ে আসলে তাঁরা মেনে নিতো। সানিয়া একা এসে তাদের বাড়িতে উঠায় মেনে নিবেন না।
স্থানীয়রা তাদের প্রেমের সম্পর্কের কথা জানেন। তারা বিভিন্ন সময় তাদের এক সাথে দেখেছেন।

অপরদিকে সোহাগের এক ঘনিষ্টজন তাদের প্রেমের সর্ম্পকের কথা জানতেন বলে জানায়। তাঁরা পারিবারিক ভাবে সম্যসা সমাধানেরও চেষ্টা করেন। তবে সানিয়া অন্য এক ছেলের সাথে প্রেমের সম্পর্ক ছিলো বলে সোহাগ সানিয়াকে মেনে নিতে চায় না। অন্য জনের সাথে সম্পর্কের কথা অস্বীকার করেন সানিয়া।
এব্যাপারে সানিয়া বাউফল থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান বলেন অভিযোগ পেয়েছি। ঘটনার সত্যতা যাচাই করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

164Shares

Count currently

  • 174638Visitors currently online:

Counter Total

Facebook Pagelike Widget

Desing & Developed BY EngineerBD.Net