বুধবার, ২৪শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং, বিকাল ৫:৪৯

নগর কর্পোরশনের অদক্ষতায়, বিরম্বনায় চিকিৎসক দম্পত্তি

নগর কর্পোরশনের অদক্ষতায়, বিরম্বনায় চিকিৎসক দম্পত্তি

dynamic-sidebar

খান লিমন
সিটি কর্পারেশনের প্ল্যান পাশ করা থাকা সত্ত্বেও প্ল্যান বহির্ভুত ইমারত নির্মাণ অভিযোগ কেন করলো।

 

নগরীর ১৫ নং ওয়ার্ড কালু শাহ সড়কে নগর  কর্পোরশনের অদক্ষতার কারণে চিকিৎসক এ টি এম মোস্তাফিজুর রহমান  এর বাড়ী  নির্মাণ হুমকির মুখে। চিকিৎসক এ টি এম মোস্তাফিজুর রহমান ও তার স্ত্রী  চিকিৎসক ফরিদা বেগম উক্ত সম্পত্তি দোতলা দালান সহ ৩৫.০০.০০০ ( পঁয়ত্রিশ লক্ষ ) টাকা মূল্যে মিসেস প্রণতি বৈদ্য এর কাছ থেকে কেনে ১৭/০১/২০১১ ইং তারিখে। তখন থেকেই চিকিৎসক দম্পত্তি পরিবারের সকলকে নিয়ে এখন পর্যন্ত বসবাস করে আসছেন।পূর্বে নির্মাণাধীন পুরাতন দালান ভেঙে একই স্থানে নতুন ভাবে দালান নির্মাণের জন্য বরিশাল সিটি কর্পারেশনের এ নতুন দালানের প্ল্যান দাখিল করে। দাখিল কৃত প্ল্যান নম্বর ০৩ পি. ডব্লিউ। বিগত ২২/০৭/২০১৮ ইং তারিখ সিটি কর্পারেশনের  সার্ভেয়ার আশরাফ আলী এবং বিগত ০৭/০৮/২০১৮ ইং তারিখে বরিশাল সিটি কর্পারেশনের  উপ সহকারী প্রকৌশলী মোঃ আহসান হাবিব দাখিলকৃত প্লেন সাক্ষর করে পাশ করে। যথাক্রমে সিটি কর্পারেশনের নির্মাণ সংক্রান্ত সকল শর্তাবলী মেনে দালান নির্মাণ কাজ শুরু করে।কিন্তু হঠাৎ করেই ০৭/০২/২০১৯ ইং তারিখে ড্রেনের উপর এবং রাস্তা থেকে নির্দিষ্ট দূরত্ব না রেখে , প্ল্যান বহির্ভুত ইমারত নির্মাণ অভিযোগে চিকিৎসক দম্পত্তির দালান নির্মাণ কাজ বন্ধের নোটিশ দেয় সিটি কর্পারেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা। সিটি কর্পারেশনের  এরকম দ্বিচারিতা কাজে কর্পারেশনের চরম অদক্ষতার প্রমান ফুটে ওঠে। আমার জানামতে কোনো প্ল্যান পাশ করার  আগে নগর কর্মকর্তারা সরেজমিনে পরিদর্শন করে সবকিছু যাচাই বাছাই করে প্ল্যান পাশ করে।কিন্তু এখানে প্ল্যান পাশ করলো সিটি কর্পারেশনের কর্মকর্তারা সেই মোতাবেক দালানের নির্মাণ কাজ শুরু হলো। নির্মাণ কাজ শেষ দিকে এসে কাজ বন্ধের নোটিশ দিলো সেই প্ল্যান পাশ করা সিটি কর্পারেশনের কর্মকর্তারা।সমস্ত  ঘটনাই সাংঘর্ষিক। সিটি কর্পারেশনের প্ল্যান পাশ করার আগে কেন দেখলোনা ওখানে ড্রেন আছে এবং রাস্তা থেকে নির্দিষ্ট দূরত্ব নাই। দালান নির্মাণ কাজ শেষ দিকে এসে কেন নির্মাণ কাজ ভেঙে ফেলার নোটিশ দেয়। এই সিটি কর্পারেশনের প্ল্যান পাশ করা থাকা সত্ত্বেও প্ল্যান বহির্ভুত ইমারত নির্মাণ অভিযোগ কেন করলো।সিটি কর্পারেশনের  অদক্ষতার এই অহেতুক হয়রানি এই চিকিৎসক দম্পতিকে সামাজিকভাবে ও অর্থনৈতিক ভাবে যে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে তার দায়ভার কি সিটি কর্পারেশনের এই কর্মকর্তারা নিবে। এই বিষয়ে একাধিকবার সিটি কর্পারেশনের কর্মকর্তাদের সাথে সাক্ষাৎ করার জন্য গেলে তাদের সাক্ষাৎ পাওয়া যায় নাই। এইভাবে অদক্ষ দায়িত্বজ্ঞানহীন কর্মকর্তায় বরিশাল সিটি কর্পারেশন চলতে থাকলে বর্তমান মেয়র এর আধুনিক বরিশালের স্বপ্ন বাস্তবায়িত হওয়া দূরের কথা , স্বপ্নটাই ঝাপসা হয়ে যাবে।  

67Shares

Count currently

  • 84640Visitors currently online:

Counter Total

Facebook Pagelike Widget

Desing & Developed BY EngineerBD.Net